• শিরোনাম

    সিলেটে যার শূন্যতা পূরণ হবার নয়!

    | ১৫ জুন ২০২০ | ১২:৪৪ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে 235 বার

    সিলেটে যার শূন্যতা পূরণ হবার নয়!

    আব্দুল বাছিত বাচ্চুঃ সিলেট আওয়ামীলীগকে জয়ের ধারায় ফিরিয়েছিলেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। পচাত্তরের ১৫ ই আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্ব পরিবারে হত্যার পর সিলেটে মুখ থুবরে পড়ে আওয়ামীলীগের রাজনীতি ।সিলেটের নির্বাচনী মাঠে পরাজয় নিত্যসঙ্গী হয় দেশের সর্ববৃহৎ এই দলটির।

    ১৯৭৯ সালে সিলেট -১ (সদর-কোম্পানিগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে পরাজিত করে জয়ী হন বিএনপির স্থানীয় প্রার্থী খন্দকার আব্দুল মালিক। ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগে পরাজয়ের এ ধারা অব্যাহত থাকে। ১৯৮৬ সালের জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগে র প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুস সামাদ আজাদের মতো শক্তিশালী প্রার্থীকে সদরে পরাজয়ের স্বাদ নিতে হয়।



    ৮৯ সালে পৌরসভা নির্বাচন, ৯০ সালের উপজেলা নির্বাচন ও ৯১ সালের জাতীয় নির্বাচনে সিলেট সদরে আওয়ামী লীগের শক্তিশালী প্রার্থী সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইফতেখার হোসেনক শামীম পরাজয়জয় বারণ করেন। এসব নির্বাচনে পৌরসভায় চেয়ারম্যান পদে আ ফ ম কামাল, উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আল্লাহর দলের ছয়ফুর রহমান ওরপে ছক্কা ছয়ফুর এবং সদরের এমপি নির্বাচনে বিএনপির খন্দকার আব্দুল মালিক নির্বাচিত হন।

    ৯১ সালে দেশে প্রথম বারের মতো দল নিরপেক্ষ সরকারের তত্বাবধানে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে সিলেটের ১৯ টি আসনের মধ্যে শুধু সিলেট -১(সদর- কোম্পানিগঞ্জ)আসনে জয়ী হয়ে বিএনপি সরকার গঠন করে।

    আওয়ামী লীগে র এই নির্বাচনিক ভরাডুবির পর শেখ হাসিনাকে সিলেট নিয়ে নতুন করে ভাবতে হয়। সিলেটে বিজয়ের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে আওয়ামী লীগ।এমনি পরিস্থিতিতে ১৯৯৫ সালে সিলেট পৌরসভার নির্বাচনে অনেক হেভিওয়েট নেতাকে বাদ দিয়ে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা মনোনয়ন দেন তৎকালীন পৌরসভা কমিশনার বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানকে। তখন সারাদেশের মানুষ তাকিয়ে ছিলেন সিলেট পৌরসভার নির্বাচনের দিকে।

    বিশেষ করে বিএনপি সরকারে থাকার পরও তাদের দলীয় প্রার্থীকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন কামরান। এই জয়ের ধারায় ১৯৯৬ সালে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে সিলেটকে বিভাগ করা সহ ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড এবং আধুনিক সিলেট গড়ে তোলার রুপকার বিএনপির সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান কে পরাজয় বরণ করতে হয়।তখন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা অভিমত ব্যক্ত করেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের বিজয়ের ধারাবাহিকতা হলো জাতীয় নির্বাচনের এ বিজয়।

    বিশেষ করে ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী মাত্র ৪৫০ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন। আর আওয়ামী লীগ অল্প ব্যবধানে একক সংখ্যা গরিষ্ঠ দল হিসেবে সরকার গঠন করে।

    এভাবে আওয়ামী লীগে র আরও অনেক বিজয়ের নায়ক বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।করোনা ভাইরাস জনিত কোভিড -১৯ এ আক্রান্ত হয়ে বেশ কদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে আজ ভোর রাতে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি চিরবিদায় নিয়েছেন।হয়তো যে কেউ এই হাল ধরবে প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে। কিন্তু একজন বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের শুন্যতায় অনেকদিন ভোগবে সিলেটবাসী।

    আব্দুল বাছিত বাচ্চু
    চেয়ারম্যান,১০ নং হাজীপুর ইউনিয়ন, কুলাউড়া।প্রাক্তন বার্তা সম্পাদকদৈনিক শ্যামল সিলেট

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০