• শিরোনাম

    খুলনায় চালু হলো ই-পাসপোর্ট, ঘোষণা ছাড়া এমআরপি বন্ধে মানুষের দুর্ভোগ

    | ০৬ অক্টোবর ২০২০ | ৫:২৬ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে 58 বার

    খুলনায় চালু হলো ই-পাসপোর্ট, ঘোষণা ছাড়া এমআরপি বন্ধে মানুষের দুর্ভোগ

    খুলনা বিভাগীয় পাসপোর্ট অফিসে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে। এখন থেকে শুধু ই-পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ ও সরবরাহ করা হবে। গত রোববার থেকে বন্ধ হয়ে গেছে মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের (এমআরপি) আবেদন গ্রহণ। কোনো ঘোষণা ছাড়াই এমআরপি আবেদন গ্রহণ বন্ধ করে দেওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন দূরদূরান্ত থেকে আসা আবেদনকারীরা। এদিন সকালে পাসপোর্টের জন্য টাকা জমা দিতে গিয়ে ফিরে গেছেন অসংখ্য মানুষ। দিনভর পাসপোর্ট অফিসেও ছিল ভোগান্তির শিকার মানুষের ভিড়। এক পর্যায়ে আগে টাকা জমা দেওয়া ব্যক্তিদের এমআরপি আবেদন গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ।

    খুলনা বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস থেকে জানা গেছে, সারাদেশে ই-পাসপোর্ট চালুর প্রক্রিয়া শুরু করেছে পাসপোর্ট অধিদপ্তর। খুলনাসহ কয়েকটি বিভাগীয় শহরে অগ্রাধিকবার ভিত্তিতে এই কার্যক্রম শুরু করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে খুলনা কার্যালয়ে কর্মরতদের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল থেকে আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে। আগের মতো তারাও নির্ধারিত সময়ে পাসপোর্ট হাতে পাবেন।



    সকালে পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে দেখা গেছে, আবেদনকারীদের জটলা। বটিয়াঘাটা উপজেলার জলমা ইউনিয়নের রাজবাঁধ গ্রাম থেকে আসা শিবরঞ্জন বলেন, সকালে ব্যাংকে টাকা জমা দিতে গিয়ে শুনি পাসপোর্ট অফিস থেকে টাকা নিতে নিষেধ করা হয়েছে। পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে শুনলাম এখন থেকে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে হবে। এতে আরও টাকা লাগবে। তার সঙ্গে থাকা একই গ্রামের পলাশ মালাকার বলেন, গত সপ্তাহে এসে খোঁজ নিয়ে গেছি, তখন কেউ কিছু বলেনি। অফিসে এসে শুনি এমআরপি আবেদন নেওয়া হবে না। এখন বাড়ি গিয়ে আবার ফরম পূরণ এবং বেশি টাকা নিয়ে আসতে হবে।

    নগরীর গোবরচাকা এলাকার বাসিন্দা সেলিম আজাদও এসেছিলেন তার মেয়ের পাসপোর্ট করতে। তিনি বলেন, ই-পাসপোর্ট খুবই ভালো উদ্যোগ। তবে আগে থেকে একটু ঘোষণা দিলে এত মানুষের কষ্ট হতো না।

    খুলনা বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম খান বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে একটি সভায় ছিলেন। তার ব্যক্তিগত সহকারী অগ্নিভ চৌধুরী জানান, ই-পাসপোর্ট গ্রহণের প্রস্তুতি অনেক আগে থেকেই চলছে। এ জন্য নতুন করে ঘোষণা দেওয়া হয়নি। গতকাল থেকে আর এমআরপি আবেদন গ্রহণ করা হচ্ছে না। অনেকেই এমআরপির জন্য ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে রেখেছেন। যারা ২ অক্টোবরের মধ্যে টাকা জমা দিয়েছেন, তাদের আবেদন গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তিনি জানান, বর্তমানে যাদের এমআরপি রয়েছে, মেয়াদ শেষ হলে তারা ই-পাসপোর্ট করবেন। বিদ্যমান পাসপোর্ট পরিবর্তনের প্রয়োজন নেই।

    পাসপোর্ট অফিস থেকে জানানো হয়েছে, ই-পাসপোর্টের কথা শুনে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। ৪৮ পাতার পাঁচ বছর মেয়াদি পাসপোর্ট ২১ দিনের মধ্যে নিতে চাইলে চার হাজার ২৫ টাকা; ১০ দিনের মধ্যে চাইলে ছয় হাজার ৩২৫ টাকা; দুদিনের মধ্যে চাইলে আট হাজার ৬২৫ টাকা ব্যাংকে জমা দিতে হবে।

    এ ছাড়া ৪৮ পাতার ১০ বছর মেয়াদি পাসপোর্ট ২১ দিনের মধ্যে নিতে চাইলে পাঁচ হাজার ৭৫০ টাকা; ১০ দিনের মধ্যে চাইলে আট হাজার ৫০ টাকা এবং দুদিনের মধ্যে নিতে চাইলে ১০ হাজার ৩৫০ টাকা জমা দিতে হবে। অনলাইনে ছাড়াও প্রিমিয়ার, সোনালী, ট্রাস্ট, ব্যাংক এশিয়া, ঢাকা ও ওয়ান ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়া যাবে।

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    সালমান শাহ’র মৃত্যুর ২৩ বছর

    ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

    বাবা হলেন রুবেল

    ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১